ফরেক্স ট্রেডারের জন্য মানি ম্যানেজমেন্ট

0
32

প্রফিট এবং লস কে সঠিকভাবে পরিচালনা করাই হল সফল ফরেক্স ট্রেডিং এর মূলমন্ত্র। সাধারণত বেশিরভাগ ট্রেডারের ক্ষেত্রেই প্রফিট বড় এবং লস ছোট হওয়া উচিত। এই ক্ষেত্রে একটি ভাল মানি ম্যানেজমেন্ট এর উপাদান যদি ট্রেডিং প্ল্যান এ থাকে তাহলে প্রফিট অনেকটা নিশ্চিত হয়। তবে সে ক্ষেত্রে একটি সুপ্রতিষ্ঠিত মানি ম্যানেজমেন্ট এর কৌশল সবার জানা উচিত।

খুব ভাল এবং কার্যকরী ট্রেডিং প্ল্যান প্রফিট করার জন্য যথেষ্ট হলেও মানি ম্যানেজমেন্টকে ব্যবহার না করার কারনে ট্রেডিং একাউন্ট এর সর্বনাশ হয়ে যেতে পারে যে কোন মুহূর্তে। প্রত্যেক ট্রেডারকে লস গ্রহনের জন্য মানসিকভাবে প্রস্তুত থাকতে হবে। যদি কোন ট্রেডারের এই প্রস্তুতি না থাকে তাহলে ভবিষ্যতে যে কোন সময় সে তার একাউন্ট এর সব ব্যাল্যান্স লস হয়ে যেতে পারে। এবং একাউন্ট এর ব্যাল্যান্স সব লস হয়ে গেলে সেটা ট্রেডারের মার্কেটের প্রতি বিশ্বাস কমিয়ে ফেলবে। যদি সঠিকভাবে মানি ম্যানেজমেন্ট ব্যাবহার করা হয় তাহলে এই মানসিক অস্বস্তি থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। মুলত যে ফরেক্স ট্রেডার মানি ম্যানেজমেন্ট এর দিকে মনোযোগ দেয় না সে মুলত ট্রেডিং করছে না, গ্যাম্বলিং করছে। প্রতি ট্রেডে কতটুকু রিস্ক নেয়া হচ্ছে এবং মুল ব্যাল্যান্স এর কতটুকু রিস্ক নেয়া হচ্ছে সেটা সম্পর্কে সঠিক জ্ঞান থাকলে একজন সফল ট্রেডার হওয়া সম্ভব।

অনেক সময় মানি ম্যানেজমেন্ট ব্যাবহারের কারনে অনেক প্রফিটেবল ট্রেড মিস হয়ে যাবে কিন্তু সঠিক মানি ম্যানেজমেন্ট একজন ট্রেডারকে ধারাবাহিকভাবে প্রফিটে থাকতে সাহায্য করবে। খুব ভোলাটাইল মার্কেট যেমন ফরেক্স মার্কেটে টিকে থাকতে হলে লসকে কমানোর এবং প্রফিট কে ধরে রাখার জন্য যা যা বিষয় জানা দরকার তার সব গুলোই জানতে হবে।

মানি ম্যানেজমেন্ট এর নিয়মঃ

ফরেক্স মার্কেট এ টিকে থাকতে হলে একটি বিস্তারিত মানি ম্যানেজমেন্ট যে কোন ফরেক্স ট্রেডার এর ট্রেডিং প্ল্যান এর ভিতরে থাকা উচিত।

একটি পরিপূর্ণ মানি ম্যানেজমেন্ট এর ভিতরে যেসব দিকনির্দেশনা থাকা উচিতঃ

লস মেনে নেয়া যাবে না এমন অর্থ নিয়ে ট্রেড করা যাবে না।

মানি ম্যানেজমেন্ট এর একদম প্রাথমিক নিয়ম হল ট্রেড এর ক্যাপিটাল দৈনন্দিন খরচের টাকা, লোন নেয়া টাকা, ভাড়া অথবা অন্যান্য প্রতিদিনের খরচের ইত্যাদি হতে পারবে না। ট্রেডিং এর জন্য শুধু সেই টাকা নিতে হবে যা দিয়ে কোন ঝুকি নেয়া যায়। যদি দৈনন্দিন খরচের টাকা ট্রেডিং এ ইনভেস্ট করা হয় তাহলে লস হলে ট্রেডার এর উপরে একটা অতিরিক্ত মানসিক চাপ পড়ে।

এরকম মানসিক চাপের ভিতরে থেকে ট্রেডার ভালো ট্রেডের ব্যাপারে এনালাইসিস করতে পারে না।

প্রতি ট্রেডে কত পরিমান রিস্ক নেয়া হবে সেটা মানি ম্যানেজমেন্ট এর আরেকটি মুল বিষয়। প্রত্যেক ট্রেডারের হিসাব করা উচিত ট্রেড নেয়ার আগে যে ওই ট্রেডে তার কত লস হতে পারে এবং লাভ হলে সেটাও কত হতে পারে। উদাহরণস্বরূপ কিছু ট্রেডার ১:২ ঝুকি মুনাফা রেশিও ব্যাবহার করে যদি ট্রেড করে তাহলে সে ১ ইউনিট রিস্ক নিচ্ছে ২ ইউনিট প্রফিটের জন্য। তাছাড়া অন্য ট্রেডাররা যদি ৩ ইউনিট প্রফিট এর জন্য ১ ইউনিট ঝুকি নেয় তাহলে ঝুকি মুনাফার রেশিও হবে ১:৩।

যেই ট্রেডে মুনাফার পরিমাণ বেশি হবে সেই ট্রেড গুলো খুজে বের করলে ভাল ভাল ট্রেডের সুযোগ পাওয়া যায়। এরপরে ট্রেডার তার ক্যাপিটাল এর কত টুকু ঝুকি নিবে তার উপরে মনযোগ দিবে। এ ছাড়া মারজিন লেভেল ও লিভারেজ এর উপরেও এই রেশিও নির্ভর করে। যদি কোন ভালো সুযোগ আসে তাহলে এই ক্ষেত্রে একটু বেশি রিস্ক নেয়া যায় বেশি প্রফিটের জন্য।

সঠিক ট্রেড সাইজ ব্যবহার করাঃ

ট্রেডিং একাউন্ট এর ব্যালান্স এর সাথে হিসাব রেখে যদি ট্রেডিং এর সাইজ ব্যবহার করা হয় তাহলে একাউন্ট এর ব্যালান্স এর নিরাপত্তা অনেকটা নিশ্চিত হয়। এভাবে একটি নির্দিষ্ট লট সাইজ প্রত্যেক ট্রেডে ব্যবহার করলে প্রত্যেক ট্রেডে একাউন্ট এর একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ ঝুকি নেয়া হয়।

উদাহরণস্বরূপ, অনেক সফল ফরেক্স ট্রেডার তাদের একাউন্ট এর শুধুমাত্র বিশ শতাংশ ঝুকি নেয়। যদি এই বিশ শতাংশ কোন কারনে লস হয়ে যায় তাহলে সেই লস রিকভার এর জন্য ট্রেডার এর হাতে অনেক সুযোগ থাকে। অনেক ফরেক্স ট্রেডার কোন ট্রেডে প্রফিট হবার সম্ভাবনা কত সেটার উপর ভিত্তি করে ট্রেডের সাইজ ব্যাবহার করে। এরকম ট্রেডার আগে প্রফিট বা লসের সম্ভাবনা হিসাব করে এবং এর পরে সে অনুযায়ী ট্রেডের সাইজ নির্ধারণ করে।

প্রত্যেক ট্রেডে স্টপ লস ব্যাবহার করাঃ

এখন একাউন্ট এর ব্যালেন্স অনুযায়ী কতটুকি রিস্ক নেয়া হবে সেটার উপর ভিত্তি করে ট্রেডের সাইজ নির্ধারণ করার পরে একজন ট্রেডার  কোন কারেন্সি পেয়ার এ ট্রেড করবে সেটা নির্ধারণ করবে। ট্রেড শুরু করার আগে ওই ট্রেডে কত লেভেল পর্যন্ত লস সহনীয় হবে সেটা নির্ধারণ করতে হবে।

অনেক ট্রেডার ট্রেড নেবার সাথে সাথেই তাদের স্টপ লস সেট করে, এইটা ট্রেডারকে নিয়মানুবর্তী হতে সাহায্য করে। স্টপ লস সেট করলে যদি কোন কারনে মার্কেট উল্টা যাওয়া শুরু করে তাহলে সেই স্টপ লস লেভেলে এসে ট্রেডটি বন্ধ হয়ে যাবে। মানি ম্যানেজমেন্ট এর অংশ হিসেবে স্টপ লস একটি খুব গুরুত্তপূর্ণ বিষয় যেটা যে কোন ধরনের অস্বাভাবিক মুভ হলে ট্রেডারের ব্যালান্স কে রক্ষা করে।

কিছু ট্রেডার ট্রেড প্রফিটে গেলে ট্রেইলিং স্টপ লস ব্যবহার করে। কারেন্সি রেট যদি ট্রেড নেবার পরে অনুকুলে চলে আসে তাহলে স্টপ লস টি পরিবর্তন করে বাই এর ক্ষেত্রে উপরে এবং সেল এর ক্ষেত্রে নিচে সরিয়ে দেয়া যায়। এই ট্রেইলিং স্টপ লস কোন অস্বাভাবিক মুভের কারনে কোন প্রফিটের ট্রেড যাতে লসে চলে না যায় সেটা থেকে ট্রেডারের একাউন্ট কে রক্ষা করে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here