বাংলাদেশে বিদেশি বিনিয়োগ ২-৩ গুণ বাড়বে

0
84

বিশ্বব্যাংকের একটি প্রতিনিধি দল প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান এফ রহমানের সঙ্গে বৈঠক করেছেন। বিশ্বব্যাংকের দক্ষিণ এশিয়া অঞ্চলের ভাইস- প্রেসিডেন্ট হার্টউইগ শ্যাফার উচ্চ-পর্যায়ের প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন।

সোমবার (৬ ডিসেম্বর) আগারগাঁও এ অবস্থিত বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ ভবন কার্যালয়ে এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে বাংলাদেশে বাণিজ্য ও বিনিয়োগের সুযোগ সম্প্রসারণ, শেয়ারবাজারের উন্নয়নসহ বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা হয়।

বৈঠকে প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা প্রতিনিধি দলকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকারের গৃহীত পদক্ষেপের বিষয়ে অবহিত করেন যার মধ্যে রয়েছে বিদ্যুৎ উৎপাদন খাতে অভূতপূর্ব প্রবৃদ্ধি, সনাতনী কৃষি খাতকে কৃষি প্রক্রিয়াজাতকরণ শিল্পে পরিণত করা, বিদেশী উন্নয়নের জন্য শতাধিক অর্থনৈতিক অঞ্চল স্থাপন, প্রত্যক্ষ বিনিয়োগের পাশাপাশি স্থানীয় বিনিয়োগ এবং অপরিকল্পিত উন্নয়ন থেকে আবাদি জমি বাঁচানো, চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের প্রয়োজন মেটানোর জন্য দক্ষ মানবসম্পদকে প্রশিক্ষণ ও বিকাশের জন্য জাতীয় দক্ষতা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ প্রতিষ্ঠা করা, সারা দেশে ডিজিটাল সংযোগ বিস্তৃত করার জন্য দেশব্যাপী আইটি অবকাঠামো নির্মাণ, বেসরকারী খাতে বিনিয়োগ বাড়াতে একটি সক্ষম পরিবেশ তৈরির জন্য নতুন নতুন আইন প্রণয়ন এবং সংশোধন। উপদেষ্টা কোভিড-১৯ মহামারী মোকাবেলায় এবং করোনা ভাইরাস শনাক্তকরণ ও মৃত্যুর হার নিয়ন্ত্রণে রাখতে গণ টিকাদানে সরকারের অসাধারণ সাফল্যের কথাও উল্লেখ করেন।

বিশ্বব্যাংকের দক্ষিণ এশিয়া অঞ্চলের ভাইস- প্রেসিডেন্ট হার্টউইগ শ্যাফার গত এক দশকে বাংলাদেশের অর্জিত অন্তর্ভুক্তিমূলক প্রবৃদ্ধির ভূয়সী প্রশংসা করেন। বাংলাদেশের নিম্ন জিডিপি-এফডিআই অনুপাতের পরিসংখ্যানের প্রতি উপদেষ্টার দৃষ্টি আকর্ষণ করেন বিশ্বব্যাংক ভাইস প্রেসিডেন্ট।

সালমান এফ রহমান প্রতিনিধিদলকে অবহিত করেন যে গত এক দশকে এই অনুপাত স্থিতিশীল রয়েছে এবং প্রতি বছর জিডিপির আকার যেমন বাড়ছে, এফডিআই-এর প্রবাহও বাড়ছে। আগামী দুই-এক বছরের মধ্যে বাংলাদেশে এফডিআইয়ের আকার দুই থেকে তিন গুণ বাড়বে।

বৈঠকে বিডা-এর নির্বাহী চেয়ারম্যান মো. সিরাজুল ইসলাম, বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলী রুবায়াত উল ইসলাম, বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষের ব্যবস্থাপনা পরিচালক বিকর্ণ কুমার ঘোষ উপস্থিত ছিলেন। বৈঠকে বিশ্বব্যাংকের প্রতিনিধি দলে মিস মার্সি টেম্বন, বাংলাদেশ ও ভুটানের কান্ট্রি ডিরেক্টর মিস জোবিদা আল্লাউয়া, রিজিওনাল ডিরেক্টর ইক্যুটেবল গ্রোথ, ফিনান্স অ্যান্ড ইনস্টিটিউশনস (দক্ষিণ এশিয়া অঞ্চল) মিস সিসিলি ফ্রুম্যান, ডিরেক্টর, রিজিওনাল ইন্টিগ্রেশন অ্যান্ড এনগেজমেন্ট (সাউথ এশিয়া) ইউটাকা ইয়োশিনো উপস্থিত ছিলেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here