আসছে বিটকয়েনের দিন

0
121

একটি বিলাসবহুল বাড়ি কেনার জন্য দীর্ঘদিনের স্বপ্ন ছিল নরওয়ের নাগরিক ক্রিস্টোফার কোচের। অদ্ভুত এক উপায়ে তাঁর স্বপ্ন সফল হয়েছে। মাত্র ২৪ মার্কিন ডলার বিনিয়োগে স্বপ্ন সফল হয়েছে কোচের। ২৯ বছর বয়সী প্রকৌশলী ক্রিস্টোফার কোচ চার বছর আগে কিনেছিলেন ২৪ ডলার মূল্যের পাঁচ হাজার বিটকয়েন৷ সেই ১৪ ডলার মূল্যের বিটকয়েনের দাম গত চার বছরে বেড়ে দাঁড়িয়েছে ছয় লাখ নব্বই হাজার ডলারে। কিন্তু কী এই বিটকয়েন? স্বাধীন গ্রাহক থেকে গ্রাহকের মধ্যে অনলাইন লেনদেনের ডিজিটাল মাধ্যম এটি। ওপেন সোর্স ক্রিপ্টোগ্রাফিক প্রটোকলের মাধ্যমে লেনদেন হওয়া সাংকেতিক মুদ্রার নাম বিটকয়েন। এ ভারচুয়াল মুদ্রা লেনদেনের জন্য কোনো ধরনের আর্থিক প্রতিষ্ঠান, নিয়ন্ত্রণকারী প্রতিষ্ঠানের প্রয়োজন পড়ে না।
ভাগ্যবান ক্রিস্টোফার কোচ জানিয়েছেন, ২০০৯ সালে নেহাত শখের বশেই তিনি ২৪ মার্কিন ডলার খরচ করে কিনেছিলেন বিটকয়েন। এরপর তিনি এর কথা ভুলেই গিয়েছিলেন। কিছুদিন আগে হঠাত্ বিটকয়েনের দাম বেড়েছে শুনে পুরোনো এ সম্পত্তির কথা মনে আসে তাঁর। কিন্তু চার বছর আগের পুরোনো পাসওয়ার্ড ভুলে গিয়েছিলেন তিনি। পুরো এক দিন চেষ্টার পর যখন তিনি পাসওয়ার্ড মনে করেন, তখন তিনি যেন আঙুল ফুলে কলাগাছ। 

দ্রুত জনপ্রিয় হচ্ছে বিটকয়েন

বিটকয়েনের প্রচলন এখন বিশ্বের বিভিন্ন দেশে দ্রুত বাড়ছে। সম্প্রতি কানাডার ভ্যাঙ্কুভারে তিন তরুণ উদ্যোক্তা গত মঙ্গলবার বিটকয়েনে লেনদেন করার সুবিধাযুক্ত প্রথম এটিএম বুথ চালু করেছেন। বাজারবিশ্লেষকেরা বলছেন, বিটকয়েনভিত্তিক স্বয়ংক্রিয় গণনাযন্ত্র (এটিএম) স্থাপনের ফলে লেনদেনে নতুন মাত্রা যুক্ত হলো।

ধারণা করা হচ্ছে, মুদ্রা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে এটি বিটকয়েনকে আরও এগিয়ে নিয়ে যাবে। বিশ্বের প্রথম দেশ হিসেবে জার্মানি এ বছর বিটকয়েনকে ব্যক্তিগত মুদ্রা বা ‘প্রাইভেট কারেন্সি’  হিসেবে ঘোষণা করেছে। সান ফ্রান্সিসকো, বার্লিন ও আর্জেন্টিনায় ব্যাপক সমাদৃত এখন বিটকয়েন। অনলাইন কোম্পানিগুলোও এখন ভারচুয়াল মুদ্রা ব্যবহারের কাজ শুরু করছে। মাদক, চোরাচালান, অবৈধ অস্ত্র ব্যবসা ও অন্যান্য বেআইনি ব্যবহার ঠেকানোর জন্য যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডার সরকার বিটকয়েনের গ্রাহকদের নিবন্ধনের আওতায় আনার চিন্তাভাবনাও করছে।

বিটকয়েনের জানাঅজানা

  1. মাস্টারকার্ড, ভিসাকার্ড বা অন্য কোনো মাধ্যমে লেনদেনে নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ লাগলেও বিটকয়েনে এসব ঝামেলা নেই। ওয়েবসাইট থেকে কেনা যায় বিটকয়েন।
  2. যুক্তরাষ্ট্র, কানাডাসহ কয়েকটি দেশে অনলাইনভিত্তিক লেনদেনে বিটকয়েনের মাধ্যমে কেনাকাটা সম্ভব।
  3. সাধারণ ই-মেইল বা মুঠোফোনে বার্তা পাঠানোর মতোই সহজ বিটকয়েনের ব্যবহার।
  4. বর্তমান বিশ্বে ১ বিটকয়েনের বিনিময়মূল্য ২০২ মার্কিন ডলার বা ১৪৬ ইউরো।

বিটকয়েনের ইতিহাস

২০০৮ সালে বিটকয়েন উদ্ভাবন করেন কম্পিউটারবিজ্ঞানী সাতোশি নাকামোতো। এটি তাঁর ছদ্মনাম৷ বিটকয়েন ব্যবহার করে অনলাইনে খুব সহজে কেনা-বেচা করা যায় বলে এ মুদ্রাব্যবস্থাকে পিয়ার-টু-পিয়ার লেনদেন বা স্বাধীন গ্রাহক থেকে গ্রাহকের মধ্যে অনলাইন লেনদেন নামে অবহিত করা হয়। বিটকয়েনের লেনদেনটি বিটকয়েন মাইনার নামে একটি সার্ভার কর্তৃক সুরক্ষিত থাকে। পিয়ার-টু-পিয়ার যোগাযোগব্যবস্থায় যুক্ত থাকা একাধিক কম্পিউটার বা স্মার্টফোনের মধ্যে বিটকয়েন লেনদেন হলে এর কেন্দ্রীয় সার্ভার ব্যবহারকারীর লেজার হালনাগাদ করে দেয়।

বিটকয়েনের ভালোমন্দ

বিটকয়েনের লেনদেন সহজে নিয়ন্ত্রণ করা যায় না বলে বৈধ পণ্য লেনদেন ছাড়াও মাদক চোরাচালান ও অর্থপাচার কাজেও বিটকয়েনের ব্যবহার আশঙ্কাজনকভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। ডিজিটাল কারেন্সি হিসেবে জনপ্রিয়তা সত্ত্বেও বিভিন্ন আন্তর্জাতিক মুদ্রার বিপরীতে এর দরের মারাত্মক ওঠানামা, দুষ্প্রাপ্যতা এবং ব্যবসায় এর সীমিত ব্যবহারের কারণে অনেকেই এর সমালোচনা করেন। সম্প্রতি মার্কিন গোয়েন্দারা ‘সিল্ক রোড’ নামের একটি অনলাইন বাজার বন্ধ করে দিয়ে বিশ্বের সবচেয়ে বেশি বিটকয়েন উদ্ধারের দাবি করেছেন। তবে ভারচুয়াল এ মুদ্রাব্যবস্থাকে অনেক দেশেই লেনদেনে স্বীকৃতি দেওয়া হচ্ছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here