২৪ ঘন্টায় তিন বিলিয়ন ডলারের ক্রিপ্টোকারেন্সি প্রত্যাহার করলো বিনিয়োগকারীরা

0
44
HTML tutorial

বিশ্বের বৃহত্তম ক্রিপ্টোকারেন্সি এক্সচেঞ্জ বিনান্স থেকে ৩ বিলিয়ন ডলার মূল্যের সমপরিমান ক্রিপ্টোকারেন্সি প্রত্যাহার করে নিয়েছে বিনিয়োগকারীরা। ডিজিটাল কারেন্সি শিল্প সম্পর্কে নেতিবাচক খবরের প্রভাবেই ক্রিপ্টোকারেন্সি থেকে প্রচুর অর্থ প্রত্যাহারের ঘটনা ঘটেছে বলে মনে করছে ব্লকচেইন অ্যানালিটিক্স ফার্ম নানসেন। খবর সিএনএনের।

নানসেনের কন্টেন্ট লিড অ্যান্ড্রু থারম্যান, সিএনএনকে বলেছেন যে ইউএস জাস্টিস ডিপার্টমেন্টের ক্রিপ্টোকারেন্সি এক্সচেঞ্জে চলমান তদন্ত সম্পর্কে একটি প্রতিবেদন বিনিয়োগকারীদের ওপর ব্যাপকভাবে নেতিবাচক প্রভাব সৃষ্টি করে। গত কয়েক সপ্তাহে বিনান্স থেকে কোন আমানত ছাড়াই বিপুল পরিমাণ অর্থ উত্তোলন করতে দেখা গেছে – শেষ পর্যন্ত খুচরা এবং প্রাতিষ্ঠানিক উভয় ব্যবহারকারীদের মধ্যে এ ধরনের প্রত্যাহারের ধাক্কা লেগেছে বলে মনে হচ্ছে।

তবে বাজার বিশ্লেষকরা এখনো মনে করছেন এধরনের বিনিয়োগ প্রত্যাহার খুব স্বাভাবিক বাজার আচরণ। গত নভেম্বরে এফটিএক্সের পতনের পরে বিনিয়োগকারীরা ক্রিপ্টো সেক্টর থেকে সরে যেতে থাকে। বিনান্সের এক সময়ের প্রতিযোগী ক্রিপ্টোকারেন্সি উদ্যোক্তা স্যাম ব্যাঙ্কম্যান-ফ্রাইডের বিরুদ্ধে মার্কিন প্রসিকিউটররা ফৌজদারি অভিযোগ দায়ের করার পরে ডিজিটাল কারেন্সির বাজারে পতন দ্রুত হয়। গত সপ্তাহে বাহামাসে স্যামকে গ্রেপ্তার করা হয়। বিনিয়োগকারীরা ডিজিটাল কয়েনের দাম কমে যাওয়ায় প্রবল উদ্বেগে পড়েছে। বিটকয়েন সর্বশেষ লেনদেন হয়েছিল প্রতিটি ১৮ হাজার ডলারের নিচে, যা এ বছরে ৬০শতাংশ মূল্য হ্রাস পেয়েছে।

এখন বিনান্সের ব্যবসাও তদন্তের অধীনে রয়েছে। তবে মার্কিন প্রসিকিউটররা নির্বাহীদের বিরুদ্ধে ফৌজদারি অভিযোগ দায়ের করে বিনান্সে অর্থ পাচারের তদন্ত শেষ করার কথা বিবেচনা করছে। একই সঙ্গে মার্কিন বিচার বিভাগ বিষয়টি নিয়ে মন্তব্য করতে অস্বীকার করেছে।

ব্যাঙ্কম্যান-ফ্রাইডের বিরুদ্ধে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে জালিয়াতি এবং ষড়যন্ত্র সহ আটটি ফৌজদারি অভিযোগে অভিযুক্ত করা হয়েছিল। এছাড়া আলাদাভাবে, মার্কিন বাজার নিয়ন্ত্রকরা ব্যাংকম্যান-ফ্রাইডের বিরুদ্ধে বিনিয়োগকারী ও গ্রাহকদের সঙ্গে প্রতারণার অভিযোগ এনেছেন। এক সপ্তাহেরও কম সময়ে, স্যাম ব্যাঙ্কম্যান-ফ্রাইডের ১৬ বিলিয়ন ডলার ক্ষতি হয়েছে। এই বিলিয়নেয়ার ক্রিপ্টোকারেন্সি উদ্যোক্তার হাত ধরে ডিজিটাল কয়েন সাম্রাজ্যের উন্মোচন শুরু হয়েছিল।

শুক্রবারের মধ্যে, তার ভাগ্য সম্পূর্ণরূপে নিশ্চিহ্ন হয়ে যায়। তার সম্পদের মূল্য শূন্যে নেমে আসাকে ব্লুমবার্গ ‘ইতিহাসের সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ সম্পদ ধ্বংসের একটি’ বলে অভিহিত করেছে। ৩০ বছর বয়সী এ উদ্যোক্তার নেট মূল্য, যা মূলত ডিজিটাল সম্পদে আবদ্ধ ছিল, গত বসন্তে প্রায় ২৬ বিলিয়ন ডলারে বৃদ্ধি পায়। গত জুলাইয়ে তিনি বলেছিলেন যে অন্যান্য সংস্থাগুলিকে লোকসান থেকে তীরে তুলতে এবং ক্রিপ্টোকারেন্সি শিল্পকে স্থিতিশীল করতে এফটিএক্সের হাতে এখনও ‘কয়েক বিলিয়ন’ ডলার রয়েছে।

ট্রেডার বাংলাদেশ, ১৮ ডিসেম্বর, ২০২২

HTML tutorial

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here