বিদায়ী অর্থবছরে কালো টাকা সাদা হওয়ার রেকর্ড

0
71

প্রায় ২০ হাজার ৬০০ কোটি অপ্রদর্শিত অর্থ বা কালো টাকা বৈধ বা সাদা হয়েছে বিদায়ী ২০২০-২০২১ অর্থবছরে। ডাক্তার, সরকারি চাকরিজীবী, তৈরি পোশাক রফতানিকারক, ব্যাংকের স্পন্সর ডিরেক্টর, সোনা ব্যবসায়ীসহ আরও অনেকে কালো টাকা সাদা করেছেন।যা রিতিমতো রেকর্ড হয়েছে। দেশের ইতিহাসে এক বছরের এত কালো টাকা আগে কখনও সাদা করা হয়নি।

এনবিআর সূ্ত্রে জানা গেছে, ‘২০২০ সালের জুলাই থেকে ২০২১ সালের জুন’ এই সময়ের মধ্যে পুঁজিবাজার, নগদ টাকা কিংবা জমি-ফ্ল্যাট কিনে সব মিলিয়ে ১১ হাজার ৮৫৯ জন কালো টাকা সাদা করেছেন। যারা সরকারকে ১০ শতাংশ কর দিয়ে প্রায় ২০ হাজার ৬০০ কোটি অপ্রদর্শিত অর্থ বৈধ করেছেন।এর মধ্যে শুধু জুন মাসেই এক হাজার ৪৫৫ জন ব্যক্তি ৬১৯ কোটি কালো টাকা সাদা করেছেন।

জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) জনসংযোগ দফতর জানায়, ২০২০-২০২১ অর্থবছরে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) এই খাতে রাজস্ব পেয়েছে প্রায় দুই হাজার কোটি টাকা।

তথ্যমতে ৬০ শতাংশের বেশি লোক ব্যাংকে রাখা বিভিন্ন আমানত, এফডিআর, সঞ্চয়পত্র বা নগদ টাকার ওপর ১০ শতাংশ কর দিয়ে অপ্রদর্শিত অর্থের ঘোষণা দিয়েছেন। তবে দেশের পুঁজিবাজারে কাঙ্ক্ষিত বিনিয়োগ আসেনি কালো টাকা থেকে। বছর শেষে এই খাতে মাত্র ২৪৬ জন বিনিয়োগকারী ৪০০ কোটি টাকা অর্থ বৈধ বা সাদা করেছেন। অন্যদিকে ৪ হাজার ৫১৮ ব্যক্তি জমি-ফ্ল্যাট কিনে কালো টাকা সাদা করার সুযোগ নিয়েছেন।

দেশীয় বিনিয়োগ চাঙা করতে আগের অর্থবছরে অর্থনৈতিক অঞ্চল ও হাইটেক পার্কে ১০ শতাংশ হারে কর দিয়ে কালো টাকা সাদা করার সুযোগ দিয়েছিল সরকার। ২০২৪ সালের জুন মাস পর্যন্ত এই সুযোগ নিতে পারবেন করদাতারা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here