ব্যাংক খাতের ৭০ শতাংশ কোম্পানির মুনাফা বেড়েছে

0
170

চলতি বছরের প্রথম প্রান্তিকে দেশের পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ৭০ শতাংশ ব্যাংকের মুনাফায় চমক দেখিয়েছে। ব্যাংকগুলো মুনাফার বিবেচনায় আগের বছরের একই সময়ের চেয়ে ভালো করেছে। শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে প্রাইম ব্যাংকের। পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ৩১টি ব্যাংকের মধ্যে ৩০টির প্রথম প্রান্তিকের আর্থিক হিসাব প্রকাশ করা হয়েছে। এখনো রূপালি ব্যাংকের পর্ষদ সভা হয়নি এবং করার জন্য তারিখও নির্ধারন করা হয়নি।

তবে ২০২১ সালের প্রথম প্রান্তিকের (জানুয়ারি-মার্চ) ব্যবসায় ৭০ শতাংশ ব্যাংকের শেয়ারপ্রতি মুনাফা (ইপিএস) বেড়েছে। এরমধ্যে সবচেয়ে এগিয়ে রয়েছে প্রাইম ব্যাংক। আর পতনের শীর্ষে ন্যাশনাল ব্যাংক। ব্যাংকগুলোর চলতি বছরের প্রথম প্রান্তিকের সমন্বিত আর্থিক হিসাব থেকে এ তথ্য পাওয়া গেছে।

মুনাফা বাড়ার বিষয়ে ব্যাংকের প্রধান নির্বাহীদের সংগঠন অ্যাসোসিয়েশন অব ব্যাংকার্স বাংলাদেশের (এবিবি) সভাপতি ও ইস্টার্ন ব্যাংক লিমিটেডের (ইবিএল) ব্যবস্থাপনা পরিচালক আলী রেজা ইফতেখার বলেন, “ব্যাংকগুলো আগের বছরের তুলনায় খরচ অনেক কমিয়েছে। সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ ছিল খরচ কমানো, সেটা আমরা পেরেছি।” আমানতের উপর সুদের হারও আমরা কমিয়ে দিয়েছি। এটার একটা বড় প্রভাব পড়েছে অনিরীক্ষিত মুনাফার হিসাবে। এর বাইরে বেতন খরচ ছাড়া অন্যান্য অপারেটিং খরচ কমিয়ে এনেছি।”

শান্তা অ্যাসেট ম্যানেজমেন্টের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ এমরান হাসান বলেন, “করোনাভাইরাস মহামারীতে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ছাড়ের কারণে ব্যাংকগুলোকে প্রভিশন রাখতে হয়নি। এটিও মুনাফা বাড়ার একটি কারণ।”

এদিকে শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত ৩১টি ব্যাংকের মধ্যে ৩০টির ব্যাংকের মধ্যে আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় ২০২১ সালের প্রথম প্রান্তিকে ২১টি বা ৭০ শতাংশ ব্যাংকের ইপিএস বেড়েছে। আর ৯টি বা ৩০ শতাংশ ব্যাংকের ইপিএস কমেছে। এরমধ্যে ১টি ব্যাংকের লোকসান বেড়েছে। ২০২১ সালের প্রথম প্রান্তিকে সবচেয়ে বেশি হারে ইপিএস বেড়েছে প্রাইম ব্যাংকের। আগের বছরের তুলনায় ব্যাংকটির ইপিএস বেড়েছে ১৯১ শতাংশ। এরপরে ১০০ শতাংশ বেড়ে দ্বিতীয় স্থানে উঠে এসেছে এবি ব্যাংক। আর ৫২ শতাংশ বেড়ে তৃতীয় স্থানে এনআরবিসি ব্যাংক।

এদিকে গত কয়েক বছর ধরে প্রতি প্রান্তিকে ডাচ-বাংলা ব্যাংক ইপিএসে শীর্ষে থাকলেও ২০২০ সালের ১ম প্রান্তিকে তার পরিবর্তন ঘটে। তবে ২০২১ সালের ১ম প্রান্তিকে সেই স্থান পূণ:রুদ্ধার করেছে ব্যাংকটি। আগের বছরের থেকে ২০ শতাংশ বেড়ে ডাচ-বাংলা ব্যাংকটির ইপিএস হয়েছে ১.৬৫ টাকা। এরপরে ১৩ শতাংশ বেড়ে যমুনা ব্যাংকের ২য় সর্বোচ্চ ১.৬০ টাকা ইপিএস হয়েছে। আর ১৯১ শতাংশ বেড়ে ৩য় সর্বোচ্চ ১.৩৪ টাকা ইপিএস হয়েছে প্রাইম ব্যাংকের।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here