‘পুঁজিবাজারে ডন গ্লোবালের বিনিয়োগের সিদ্ধান্ত ইতিবাচক’

0
166

যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক সম্পদ ব্যবস্থাপনা প্রতিষ্ঠান ডন গ্লোবাল বাংলাদেশ, ইন্দোনেশিয়া, পাকিস্তান, ফিলিপাইন ও ভিয়েতনামের পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানিতে বিনিয়োগের উদ্দেশ্যে এশিয়ান গ্রোথ কাবস ইটিএফ নামে একটি ফান্ড উন্মোচন করেছে। এ পাঁচ উদীয়মান দেশের পুঁজিবাজারে বিনিয়োগের জন্যই ফান্ডটি গঠন করা হয়েছে। দেশগুলোর ঈর্ষণীয় প্রবৃদ্ধি সম্পদ ব্যবস্থাপনা কোম্পানিটিকে বিনিয়োগে আগ্রহী করে তুলেছে।

দেশের পুঁজিবাজার সংশ্লিষ্টরা ডন গ্লোবালের এমন সিদ্ধান্তকে ইতিবাচক হিসেবে দেখছেন। তারা বলেছেন, বর্তমানে বাংলাদেশের পুঁজিবাজার শক্তিশালী অবস্থানে আছে। এমতাবস্থায় পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানিতে ডন গ্লোবাল বিনিয়োগ করলে এটি আরো এগিয়ে যাবে। পুঁজিবাজারের গভীরতা বাড়বে। বিনিয়োগের বিষয়ে ডন গ্লোবাল বলছে, বাংলাদেশসহ এই পাঁচ দেশে ৮৬ কোটি মানুষের অর্থনীতি বেশ সম্ভাবনাময়। এ পাঁচ দেশের জনসংখ্যা লাতিন আমেরিকার মোট জনসংখ্যার চেয়েও বেশি এবং এদের বড় অংশই তরুণ।

২০০০ সাল থেকেই এই দেশগুলো সবচেয়ে দ্রুতবর্ধনশীল ১৫টি অর্থনীতির মধ্যে রয়েছে। আইএমএফের বরাত দিয়ে প্রতিষ্ঠানটি বলছে, ২০২০ থেকে ২০২৬ সময়ে উদীয়মান এশিয়ার জিডিপি প্রবৃদ্ধি সবচেয়ে বেশি হবে। এ বাজারগুলোর বর্তমান ভ্যালুয়েশন সর্বোচ্চ পর্যায়ের চেয়ে ৫০ শতাংশ নিচে রয়েছে এবং এর প্রবৃদ্ধি ও মৌলভিত্তি এখনো সহনীয় পর্যায়ে রয়েছে।

২০০০ সালের জানুয়ারিতে এশিয়ান গ্রোথ কাবস ইটিএফ এই পাঁচ উদীয়মান দেশের বাজারে ১ হাজার ডলার বিনিয়োগ করলে ২০ বছর পর এর রির্টান কী হতো সেটির একটি বিশ্লেষণ করেছে। প্রতিষ্ঠানটির বিশ্লেষণে দেখা যায়, এশিয়ান গ্রোথ কাবস ইকুইটি ইনডেক্স কম্পোজিট ভারত, চীন, এমএসসিআই, এস অ্যান্ডপি ৫০০ এমনকি এমএসসিআই ইমার্জি মার্কেট ইনডেক্সকেও ছাড়িয়ে গেছে।

বাংলাদেশ ও ভিয়েতমানের বিষয়ে ডন গ্লোবালের পর্যবেক্ষণ হচ্ছে, ৪০ বছর ধরেই দেশ দুটি বিশ্বের তিনটি দেশের মধ্যে অন্যতম, যাদের জিডিপি বর্ধনশীল। বাংলাদেশে মাথাপিছু জিডিপি গত বছর প্রথমবারের মতো ভারতের মাথাপিছু জিডিপিকে ছাড়িয়ে যাওয়ার বিষয়টিও প্রতিষ্ঠানটির বিশ্লেষণে উঠে এসেছে।

উদীয়মান এই পাঁচটি দেশের সম্ভাবনাময় ১২টির বেশি ইউনিকর্নের কথা উল্লেখ করেছে প্রতিষ্ঠানটি, যার মধ্যে ব্র্যাক ব্যাংকের সাবসিডিয়ারি বিকাশও রয়েছে। ভোগ্যপণ্য, ওষুধ, আর্থিক, আবাসন ও উৎপাদন খাতের শেয়ারেই বেশি বিনিয়োগ করে ডন গ্লোবাল।

বিনিয়োগ আসার প্রসঙ্গে বাংলাদেশ মার্চেন্ট ব্যাংকার্স অ্যাসোসিয়েশনের (বিএমবিএ) সভাপতি মো. ছায়েদুর রহমান বলেন, বাংলাদেশের পুঁজিবাজারে ডন গ্লোবালের বিনিয়োগ সিদ্ধান্ত অত্যন্ত ইতিবাচক সংবাদ। কারণ আমাদের পুঁজিবাজার এখন যথেষ্ট স্ট্যাবল একটি জায়গায়। ‘পাশ^বর্তী দেশ ভারতের সাথে তুলনা করলে আমাদের দেশে বিনিয়োগ সুযোগ অনেক ভাল। যেখানে ভারতে ৩৪/৩৫ মিনিটে ট্রেড হচ্ছে। সেখানে আমাদের দেশে ট্রেড হচ্ছে মাত্র ১৫ মিনিটে। অর্থাৎ অনেক সম্ভাবনাময়। এছাড়া আনুষাঙ্গিক দিক দিয়ে যেমন পারক্যাপিট্যাল ইনকাম আমাদের

ভালো। জিডিপি গ্রোথ ভারতের চেয়ে বেশি। কোভিডের অবস্থাও ভারতের চেয়ে ভাল।এসব কারণে দেশে বিদেশি বিনিয়োগ আসছে।’
বিদেশি বিনিয়োগ এলে সুবিধার বিষয়ে তিনি বলেন, বিদেশি বিনিয়োগ এলে আমাদের পুঁজিবাজারের গভীরতা বাড়বে, বাজারে লেনদেন বাড়বে। ফলে স্থানীয় ও বিদেশি সকল বিনিয়োগকারীই উপকৃত হবে। দেশের অর্থনীতিতেও ভালো ভুমিকা রাখবে। বাজারে লেনদেন বাড়লে সরকার ট্যাক্সও বেশি পাবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here