শীর্ষ ছয় কোম্পানির আড়াই হাজার কোটি টাকা বাজার মূলধন কমেছে

0
262

গত সপ্তাহে নিম্নমুখিতার মধ্য দিয়ে লেনদেন শেষ হয়েছে দেশের শেয়ারবাজারে। সপ্তাহের প্রথম চার কার্যদিবসে সূচকের টানা পতন হলেও শেষ কার্যদিবসে সূচকে কিছুটা পয়েন্ট যোগ হয়েছিল। সূচকের এ পতনের কারণে দর কমেছে অধিকাংশ কোম্পানির। বাজার মূলধনের দিক দিয়ে পুঁজিবাজারের শীর্ষ কোম্পানিগুলোর শেয়ারও দর হারিয়েছে এ সময়। এর মধ্যে গত সপ্তাহে শীর্ষ ছয় কোম্পানির বাজার মূলধন কমেছে প্রায় আড়াই হাজার কোটি টাকা।

বাজার পর্যবেক্ষণে দেখা যায়, গত সপ্তাহে সবচেয়ে বেশি ৮৯৪ কোটি টাকা বাজার মূলধন কমেছে সিমেন্ট খাতের বহুজাতিক কোম্পানি লাফার্জহোলসিম বাংলাদেশ লিমিটেডের। গত সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস বৃহস্পতিবার কোম্পানিটির বাজার মূলধন দাঁড়িয়েছে ১০ হাজার ২৪৩ কোটি টাকায়। এর আগের সপ্তাহ শেষে কোম্পানিটির বাজার মূলধন ছিল ১১ হাজার ১৩৭ কোটি টাকা।

বাজার মূলধন হারানোর দিক থেকে দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে রাষ্ট্রায়ত্ত বিনিয়োগ প্রতিষ্ঠান ইনভেস্টমেন্ট করপোরেশন অব বাংলাদেশ লিমিটেড (আইসিবি)। প্রতিষ্ঠানটির বাজার মূলধন কমেছে ৭০১ কোটি টাকা। গত সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে কোম্পানিটির বাজার মূলধন দাঁড়ায় ১০ হাজার ৯৭৫ কোটি টাকা। আগের সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে যা দাঁড়িয়েছিল ১১ হাজার ৬৭৬ কোটি টাকা।

মূলধন কমার দিক থেকে গত সপ্তাহে তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে টেলিযোগাযোগ খাতের বহুজাতিক কোম্পানি রবি আজিয়াটা লিমিটেড। গত সপ্তাহে প্রতিষ্ঠানটি বাজার মূলধন হারিয়েছে ৪১৯ কোটি টাকা। গত সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে প্রতিষ্ঠানটির বাজার মূলধন দাঁড়ায় ২০ হাজার ৭৯৫ কোটি টাকা। যেখানে আগের সপ্তাহে শেষে বাজার মূলধন ছিল ২১ হাজার ২১৩ কোটি টাকা।

টেলিযোগাযোগ খাতের শীর্ষ কোম্পানি গ্রামীণফোন লিমিটেড বাজার মূলধনের দিক দিয়েও পুঁজিবাজারের শীর্ষ কোম্পানি। গত সপ্তাহে কোম্পানিটির বাজার মূলধন কমেছে ১৮৯ কোটি টাকা। গত বৃহস্পতিবার লেনদেন শেষে কোম্পানিটির বাজার মূলধন দাঁড়িয়েছে ৪৯ হাজার ৩৫৩ কোটি টাকা। যেখানে আগের সপ্তাহ শেষে কোম্পানিটির বাজার মূলধন ছিল ৪৯ হাজার ৫৪২ কোটি টাকা।

বাজার মূলধনের হিসাবে শীর্ষ ১০ কোম্পানির মধ্যে রয়েছে ব্রিটিশ আমেরিকান টোব্যাকো বাংলাদেশ কোম্পানি লিমিটেড (বিএটিবিসি)। গত সপ্তাহে বিএটিবিসির বাজার মূলধন কমেছে ১৩৫ কোটি টাকা। সপ্তাহ শেষে কোম্পানিটির বাজার মূলধন দাঁড়িয়েছে ৩৮ হাজার ৭৩৪ কোটি টাকা। যেখানে আগের সপ্তাহে কোম্পানিটির বাজার মূলধন ছিল ৩৮ হাজার ৮৬৯ কোটি টাকা।

বাজার মূলধন কমার দিক থেকে তালিকায় এর পরে রয়েছে দেশের ওষুধ খাতের শীর্ষ কোম্পানি স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস। গত সপ্তাহে প্রতিষ্ঠানটির বাজার মূলধন কমেছে ১৩৩ কোটি টাকা। সপ্তাহ শেষে কোম্পানিটির বাজার মূলধন দাঁড়িয়েছে ২০ হাজার ৭২৫ কোটি টাকা। যেখানে আগের সপ্তাহ শেষে কোম্পানিটির বাজার মূলধন ছিল ২০ হাজার ৮৫৮ কোটি টাকা।

গত সপ্তাহে বাজার মূলধন বৃদ্ধির দিক থেকে শীর্ষ ১০ কোম্পানির তিনটি হলো ওষুধ ও রসায়ন খাতের কোম্পানি বেক্সিমকো লিমিটেড, ইউপিজিডিসিএল ও রেনাটা। এর মধ্যে বেক্সিমকোর বাজার মূলধন গত সপ্তাহ শেষে ১৩ হাজার ৬৭০ কোটি টাকায় দাঁড়িয়েছে। যেখানে আগের সপ্তাহ শেষে প্রতিষ্ঠানটির বাজার মূলধন ছিল ১২ হাজার ২৩৩ কোটি টাকা। এ হিসাবে কোম্পানিটির বাজার মূলধন বেড়েছে ১ হাজার ৪৩৭ কোটি টাকা।

বিদ্যুৎ খাতের কোম্পানি ইউনাইটেড পাওয়ার জেনারেশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেডের (ইউপিজিডিসিএল) বাজার মূলধন গত সপ্তাহে ১২৭ কোটি টাকা বেড়েছে। এ সময়ে কোম্পানিটির বাজার মূলধন দাঁড়িয়েছে ১৭ হাজার ৮৯ কোটি টাকা। যেখানে আগের সপ্তাহ শেষে বাজার মূলধন ছিল ১৬ হাজার ৯৬১ কোটি টাকা।

ওষুধ খাতের আরেক কোম্পানি রেনাটা লিমিটেডের বাজার মূলধন গত সপ্তাহে বেড়েছে। গত সপ্তাহ শেষে কোম্পানিটির বাজার মূলধন বেড়েছে ৩৮ কোটি টাকা। এ সময়ে কোম্পানিটির বাজার মূলধন দাঁড়িয়েছে ১৪ হাজার ৩৩ কোটি টাকা। আগের সপ্তাহ শেষে যা ছিল ১৩ হাজার ৯৯৫ কোটি টাকা।

বাজার মূলধনের দিক থেকে শীর্ষ ১০ কোম্পানির আরেকটি হলো ওয়ালটন হাইটেক পার্ক ইন্ডাস্ট্রিজ। গত সপ্তাহে প্রতিষ্ঠানটির বাজার মূলধন অপরিবর্তিত ছিল। গত দুই সপ্তাহ শেষে কোম্পানিটির বাজার মূলধন দাঁড়ায় ৩৭ হাজার ৪১৭ কোটি টাকায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here