ব্যাংক খাতের ‘পুরোনো রোগে’ পুঁজিবাজারে ছন্দপতন

0
68

পুঁজিবাজারে ব্যাংক খাতের শেয়ারে আর্শীবাদ হলেও বিনিয়োগকারীদের কাছে আতঙ্ক। কারনে ব্যাংকের শেয়ারের দাম যখন দল বেঁধে বাড়লেও পরের কার্যদিবসে পুঁজিবাজারে দরপতন ঘটে। ফলে ব্যাংক খাতের শেয়ারে বিনিয়োগকারীদের কাছে আতঙ্ক বলে মন্তব্য করছেন বিনিয়োগকারীরা। ইতিমধ্যে ব্যাংক খাতের শেয়ার দর বেঁধে যতবার বাড়ছে ততবার বাজার দরপতন ঘটছে বলে একাধিক বিনিয়োগকারী জানান।

পুঁজিবাজারে সপ্তাহের তৃতীয় কার্যদিবসে ব্যাংক খাতের পাশাপাশি আর্থিক খাতের দরপতন ঘটে। তবে দিনের প্রায় পুরোটা সময় উত্থান হলেও শেষ বেলায় বস্ত্র খাতেও দেখা গেল দরপতন। প্রকৌশল খাতেও দিনটি ভালো যায়নি। সব মিলিয়ে উত্থানে থাকা পুঁজিবাজারে ছন্দপতন হলো। সকাল ১০টা থেকে লেনদেন শুরু হয়ে বেলা পৌনে একটা পর্যন্ত উত্থানে থাকলেও শেষ পৌনে দুই ঘণ্টায় বিক্রয়ের চাপে সূচকের পতন হলো।

দিন শেষে ১৫ পয়েন্টের পতনে সূচকের অবস্থান ৬ হাজার ৭৭১ পয়েন্ট। অবশ্য এক পর্যায়ে সূচক এখান থেকে ৫০ পয়েন্ট বেশি ছিল। লেনদেন শুরুর আধা ঘণ্টার মধ্যে সূচক এক পর্যায়ে উঠে যায় ৬ হাজার ৮২১ পয়েন্টে। তখন আশা করা হচ্ছিল আরও একটি ঝলমলে দিন বুঝি এলো পুঁজিবাজারে। তবে শেষ পর্যন্ত যত কোম্পানির শেয়ার দর বেড়েছে, কমেছে তার প্রায় দেড় গুণ। দর সংশোধনের দিন লেনদেনও কমে গেছে।

ডিএসইতে আজ ২ হাজার ৪৬৫ কোটি ৫৩ লাখ টাকার লেনদেন হয়েছে। যা আগের কার্যদিবস থেকে ২০৭ কোটি ৯৬ লাখ টাকা কম। আগের দিন লেনদেন হয়েছিল ২ হাজার ৬৭৩ কোটি ৪৯ লাখ টাকার। আজ ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ১৫.৩১ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ছয় হাজার ৭৭১.৮৪ পয়েন্টে। আজ ডিএসইর অপর সূচকগুলোর মধ্যে শরিয়াহ সূচক ২.৭৭ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে এক হাজার ৪৬৬.২৫ পয়েন্টে। তবে ডিএসই-৩০ সূচক ৪.৬৫ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে দুই হাজার ৪২৬.৮২ পয়েন্টে।

ডিএসইতে আজ ৩৭৪টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানের মধ্যে শেয়ার দর বেড়েছে ১৩৮টির বা ৩৬.৯০ শতাংশের, শেয়ার দর কমেছে ২১৬টির বা ৫৭.৭৫ শতাংশের এবং ২০টির বা ৫.৩৫ শতাংশের শেয়ার ও ইউনিট দর অপরিবর্তিত রয়েছে।

অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ২৭.৬৯ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ১৯ হাজার ৭৪০.৬৫ পয়েন্টে। সিএসইতে আজ ৩২৮টি প্রতিষ্ঠান লেনদেনে অংশ নিয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ১৩১টির দর বেড়েছে, কমেছে ১৭৩টির আর ২৪টির দর অপরিবর্তিত রয়েছে। সিএসইতে ৯২ কোটি ৪২ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here