আইএফআইসি ব্যাংককে পার্টনার করতে চায় শ্রীলংকার আমানা ব্যাংক

0
77

শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত আইএফআইসি ব্যাংককে পার্টনার বা অংশীদার করার প্রস্তাব দিয়েছে শ্রীলংকার আমানা ব্যাংক পিএলসি। মূলত শ্রীলংকার ব্যাংকটির প্রভাবশালী শেয়ারহোল্ডার ইসলামী ডেভেলপমেন্ট ব্যাংক (আইডিবি) গ্রুপ আইএফআইসিকে তাদের পার্টনার বানাতে চাইছে। তবে প্রস্তাব পেলেও এখনো এ বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত নেয়নি আইএফআইসি ব্যাংক। শ্রীলংকার চলমান ডলার সংকটের কারণে এ বিষয়ে ধীরে এগোতে চাইছে ব্যাংকটির পর্ষদ।

আমানা ব্যাংক প্রতিষ্ঠিত হয় ২০০৯ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। সর্বশেষ হিসাব অনুযায়ি, বর্তমানে আমানা ব্যাংকের ইকুইটি মূলধন ১ হাজার ৮১ কোটি শ্রীলংকান রুপি। ২০১৭ সালে ব্যাংকটি রাইট শেয়ার ইস্যুর মাধ্যমে মূলধন বাড়িয়ে ১ হাজার কোটি রুপিতে উন্নীত করে। শ্রীলংকার কেন্দ্রীয় ব্যাংকের পক্ষ থেকে ব্যাংকটির মূলধন দুই হাজার কোটি রুপিতে উন্নীত করার নির্দেশনা রয়েছে।

তবে করোনাভাইরাসের কারণে ব্যাংকটিকে শর্ত পূরণে কিছুটা ছাড় দেয়া হয়েছে। এক্ষেত্রে ব্যাংকটিকে ২০২২ সালের মধ্যে এর মূলধন ২ হাজার কোটি রুপিতে উন্নীত করার সুযোগ দেয়া হয়েছে। নির্ধারিত সময়ের মধ্যে এ শর্ত পূরণের জন্য বর্তমানে যথোপযুক্ত বিকল্প মূল্যায়ন করছে আমানা ব্যাংকের পর্ষদ। আইএফআইসিকে দেয়া প্রস্তাবে রাইট শেয়ার ইস্যুর মাধ্যমে তাদের ব্যাংকটির পর্ষদে যুক্ত করার পরিকল্পনার কথাও বলা হয়েছে।

আইএফআইসি ব্যাংকের একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা এ বিষয়ে বলেন, আরো বেশ কয়েক মাস আগেই আমানা ব্যাংকের অংশীদার হওয়ার জন্য আমাদের কাছে প্রস্তাব এসেছিল। মূলত আইডিবির মাধ্যমেই প্রস্তাবটি এসেছে। তারা চাইছে আইএফআইসিকে অংশীদার করতে। এ প্রস্তাবের খুঁটিনাটি বিভিন্ন দিক নিয়ে গত কয়েক মাস পর্যালোচনা করা হয়েছে। এখনো কোনো চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়নি। ডলার সংকট ও শ্রীলংকার নাজুক অর্থনৈতিক পরিস্থিতির কারণে আমরা এ বিষয়ে ধীরে এগোনোর সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

আমানা ব্যাংক কলম্বো স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) তালিকাভুক্ত। বর্তমানে ব্যাংকটির বাজার মূলধন ১ হাজার ৪০ কোটি রুপি। ব্যাংকটির শেয়ার সর্বশেষ ৪ রুপিতে লেনদেন হয়েছে। ২০২০ সাল শেষে আমানা ব্যাংকের মোট সম্পদের পরিমাণ ছিল ১০ হাজার ১৭ কোটি রুপি। ব্যাংকটির শেয়ারপ্রতি নিট সম্পদমূল্য (এনএভিপিএস) ৪.৭৯ রুপি। ২০২০ সালে ব্যাংকটির কর-পরবর্তী নিট মুনাফা ছিল ৪৬ কোটি রুপি।

আমানা ব্যাংকের মোট শেয়ার সংখ্যা ২৬০ কোটি ১৪ লাখ ৪৬ হাজার ১৫৫। এর মধ্যে ৬১.৬৪ শতাংশ শেয়ার রয়েছে অনিবাসী ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের কাছে। ব্যাংকটির সবচেয়ে বেশি শেয়ার রয়েছে আইডিবির কাছে। এর মধ্যে এলবি গ্রোথ ফান্ড (লাবুয়ান) এলএলপি, যা আইডিবি গ্রুপের একটি অংশ তাদের কাছে রয়েছে ২৩.৬৫ শতাংশ শেয়ার। আইডিবির নামে ব্যাংকটির আরো ৬.৩২ শতাংশ শেয়ার রয়েছে।

এছাড়া ব্যাংক ইসলাম মালয়েশিয়া বারহাদের কাছে ৭.২২, বাংলাদেশের এবি ব্যাংক লিমিটেডের কাছে ৭.২২, আকবর ব্রাদার্স (প্রাইভেট) লিমিটেডের কাছে ৬.৩১ ও মিলেনিয়াম ক্যাপিটাল ইনভেস্টমেন্টস পিটিই লিমিটেডের কাছে ২.৮০ শতাংশ শেয়ার রয়েছে।

ব্যক্তি শ্রেণীর বিনিয়োগকারীদের মধ্যে হোসেন আহমেদ ইসমাইলের কাছে ৯.৯৯, মোহাম্মদ হাজি ওমরের কাছে ৮.৯৩ ও ফারুক কাশিমের কাছে ৪ শতাংশ শেয়ার রয়েছে। বাংলাদেশের এবি ব্যাংক লিমিটেড ও আইএফআইসি ব্যাংক লিমিটেডের সঙ্গে শ্রীলংকার আমানা ব্যাংকের আরো আগে থেকেই ব্যবসায়িক সম্পর্ক রয়েছে। এ দুই ব্যাংক বাংলাদেশে আমানা ব্যাংকের করেসপন্ডিং ব্যাংক হিসেবে কাজ করছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here