পুঁজিবাজারে সূচকের টানা পতন, সাত মাসে সর্বনিম্ন লেনদেন

0
140
HTML tutorial

বৃহস্পতিবার সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস বড় পতনে শেষ হয়েছে পুঁজিবাজারেবাজারে। আজকের পতন নিয়ে টানা পাঁচ কার্যদিবস পতন হয়েছে পুঁজিবাজারে। আজ শেয়ারবাজারের সব সূচক কমেছে। একই সাথে বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দর এবং টাকার পরিমাণে লেনদেনও কমেছে। আজ ডিএসইতে সাত মাসের মধ্যে সবচেয়ে কম লেনদেন হয়েছে।

জানা গেছে, ডিএসইতে আজ ৮৪৯ কোটি ৭ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। যা ছয় মাস ২৮ দিন বা ১৩৭ কার্যদিবসের মধ্যে সর্বনিম্ন। এর আগে চলতি বছরের ২৭ এপ্রিল আজকের চেয়ে কম লেনদেন হয়েছিল। ওইদিন ডিএসইতে লেনদেন হয়েছিল ৮২৪ কোটি ৩৬ লাখ টাকার।

আজ প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৬৫.৮২ পয়েন্ট বা ০.৯৫ শতাংশ কমে ছয় হাজার ৮৫২.০৮ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। ডিএসইর অপর সূচকগুলোর মধ্যে শরিয়াহ সূচক ৯.৬২ পয়েন্ট বা ০.৬৬ শতাংশ এবং ডিএসই-৩০ সূচক ২৮.৫০ পয়েন্ট বা ১.০৮ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে যথাক্রমে ১৪৪২.৩৮ পয়েন্ট এবং দুই হাজার ৬০২.৮৬ পয়েন্টে।

ডিএসইতে আজ ৩৬২টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ৮৯টির বা ২৪.৫৯ শতাংশ শেয়ার ও ইউনিটের দর বেড়েছে। দর কমেছে ২৪১টির বা ৬৬.৫৭ শতাংশের এবং ৩২টি বা ৮.৮৪ শতাংশ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দর অপরিবর্তিত রয়েছে।

অপর পুঁজিবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএএসপিআই এদিন ২০০.৩৯ পয়েন্ট বা ০.৯৮ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ২০ হাজার ৬৯.৩৭ পয়েন্টে। এদিন সিএসইতে হাত বদল হওয়া ২৬০টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে শেয়ার দর বেড়েছে ৬০টির, কমেছে ১৭৫টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২৫টির দর। আজ সিএসইতে ৩৫ কোটি ৫৪ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে।

HTML tutorial

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here