জ্বালানি খাতের ৯ কোম্পানির প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ বেড়েছে

0
271

নভেম্বর মাসে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতের ২১ কোম্পানি শেয়ার ধারণ হালাগদ করেছে। এর মধ্যে অক্টোরের তুলনায় নভেম্বরে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ বেড়েছে ৯ কোম্পানির, কমেছে ১১ কোম্পানির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ১টির। এখাতে ২৩টি কোম্পানির মধ্যে ২টি কোম্পানির শেয়ার ধারণ হালনাগাদ করেনি। ঢাকা ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ সূত্রে এই তথ্য জানা গেছে।

জানা যায়, কোম্পানিগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ বেড়েছে লুব-রেফের (বাংলাদেশ)। অক্টোবর মাসে কোম্পানিটিতে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ ছিল ২৩.৩১ শতাংশ, যা নভেম্বরে ০.৪৮ শতাংশ বেড়ে ২৩.৭৯ শতাংশে দাঁড়ায়। একই সময়ে বিদেশি বিনিয়োগ ০.৬১ শতাংশ থেকে নভেম্বরে ০.০১ শতাংশ কমে দাঁড়ায় ০.৬০ শতাংশে। একই সময়ে সাধারণ বিনিয়োগ ৪০.৯২ শতাংশ থেকে ০.৪৭ শতাংশ কমে দাঁড়ায় ৪০.৪৫ শতাংশে।

অন্য কোম্পানিগুলোর মধ্যে-

ডেসকো : কোম্পানিটিতে অক্টোবর মাসে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ ছিল ২৩.৭৫ শতাংশ, যা নভেম্বরে র ০.০২ শতাংশ বেড়ে ২৩.৭৭ শতাংশে দাঁড়ায়। উল্লেখিত সময়ে সাধারণ বিনিয়োগ ৮.৫৩ শতাংশ থেকে নভেম্বরে ০.০২ শতাংশ কমে দাঁড়ায় ৮.৫১ শতাংশে।

ডরিন পাওয়ার : কোম্পানিটিতে অক্টোবর মাসে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ ছিল ১৮.২৬ শতাংশ, যা নভেম্বরে ০.০৪ শতাংশ বেড়ে ১৮.৩০ শতাংশে দাঁড়ায়। একই সময়ে সাধারণ বিনিয়োগ ১৫.১৩ শতাংশ থেকে নভেম্বরে ০.০৪ শতাংশ বেড়ে দাঁড়ায় ১৫.০৯ শতাংশে।

যমুনা অয়েল : অক্টোবর মাসে কোম্পানিটিতে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ ছিল ২৭.৪৮ শতাংশ, যা নভেম্বরে ০.১৪ শতাংশ বেড়ে ২৭.৬২ শতাংশে দাঁড়ায়। একই সময়ে সাধারণ বিনিয়োগ ৯.০৯ শতাংশ থেকে নভেম্বরে ০.১৪ শতাংশ কমে দাঁড়ায় ৮.৯৫ শতাংশে।

মবিল যমুনা : অক্টোবর মাসে কোম্পানিটিতে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ ছিল ১৯.৯৪ শতাংশ, যা নভেম্বরে ০.১৫ শতাংশ বেড়ে ২০.০৯ শতাংশে দাঁড়ায়। একই সময়ে সাধারণ বিনিয়োগ ৮.৩৮ শতাংশ থেকে নভেম্বরে ০.১৫ শতাংশ কমে দাঁড়ায় ৮.২৩ শতাংশে।

মেঘনা পেট্রোলিয়াম : কোম্পানিটিতে অক্টোবর মাসে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ ছিল ৩১.৯৫ শতাংশ, যা নভেম্বরে ০.২১ শতাংশ বেড়ে ৩২.১৬ শতাংশে দাঁড়ায়। একই সময়ে সাধারণ বিনিয়োগ ৯.১৯ শতাংশ থেকে নভেম্বরে ০.২১ শতাংশ বেড়ে দাঁড়ায় ৮.৯৮ শতাংশে।

পদ্মা অয়েল : কোম্পানিটিতে অক্টোবর মাসে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ ছিল ৩১.১৫ শতাংশ, যা নভেম্বরে ০.০৬ শতাংশ বেড়ে ৩১.২১ শতাংশে দাঁড়ায়। একই সময়ে সাধারণ বিনিয়োগ ১৫.৬৫ শতাংশ থেকে নভেম্বরে ০.০৬ শতাংশ কমে দাঁড়ায় ১৫.৫৯ শতাংশে।

সামিট পাওয়ার : অক্টোবর মাসে কোম্পানিটিতে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ ছিল ১৮.০৬ শতাংশ, যা নভেম্বরে ০.০৭ শতাংশ বেড়ে ১৮.১৩ শতাংশে দাঁড়ায়। একই সময়ে সাধারণ বিনিয়োগ ১৫.০৮ শতাংশ থেকে নভেম্বরে ০.০৭ শতাংশ কমে দাঁড়ায় ১৫.০১ শতাংশে।

তিতাস গ্যাস : কোম্পানিটিতে অক্টোবর মাসে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ ছিল ১৫.১৪ শতাংশ, যা নভেম্বরে ০.১৩ শতাংশ বেড়ে ১৫.২৭ শতাংশে দাঁড়ায়। একই সময়ে বিদেশি বিনিয়োগ ০.৫৪ শতাংশ থেকে নভেম্বরে ০.০৩ শতাংশ কমে দাঁড়ায় ০.৫১ শতাংশে। একই সময়ে সাধারণ বিনিয়োগ ৯.৩২ শতাংশ থেকে নভেম্বরে ০.১০ শতাংশ কমে দাঁড়ায় ৯.২২ শতাংশে।

এদিকে, লিন্ডে বিডির প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ অপরিবর্তিত রয়েছে। অক্টোবর মাসে কোম্পানিটিতে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ ছিল ২৯.৭০ শতাংশ। একই সময়ে বিদেশি বিনিয়োগ ০.৬০ শতাংশ থেকে নভেম্বরে ০.১০ শতাংশ কমে দাঁড়ায় ০.৫০ শতাংশে। উল্লেখিত সময়ে সাধারণ বিনিয়োগ ৯.৭০ শতাংশ থেকে নভেম্বরে ০.১০ শতাংশ বেড়ে দাঁড়ায় ৯.৮০ শতাংশে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here