পুঁজিবাজার থেকে ৫ হাজার কোটি টাকা তুলেছেন বিদেশিরা

0
56

২০২১ সালে ৭০ হাজার বিওধারী প্রবাসী ও বিদেশি পুঁজিবাজার ছেড়েছেন। একই সময়ে প্রবাসী ও বিদেশিরা বাজার থেকে পাঁচ হাজার কোটি টাকা তুলে নিয়েছেন। বাজার ছাড়ার পেছনে দুটি কারণ রয়েছে বলে মনে করছেন অর্থনীতিবিদরা।

বাজার সংশ্লিষ্টরা বলছেন, কিছু প্রবাসী বিনিয়োগকারী শুধু বিও অ্যাকাউন্ট নিয়ে আইপিওতে পুঁজিবাজারে আসা কোম্পানির শেয়ারে আবেদন করেন। আইপিওর নতুন নিয়মের ফলে তারা বিও অ্যাকাউন্টগুলো বন্ধ করে দিয়েছেন। এখন বাজারে প্রকৃত প্রবাসী ও বিদেশি বিনিয়োগকারীরাই রয়েছেন।

অন্যদিকে অর্থনীতিবিদরা বলছেন, গত এক থেকে দেড় বছরে বেশ কিছু কোম্পানির শেয়ারের দাম অতিমূল্যায়িত হয়েছে। যৌক্তিকমূল্যের চেয়ে বেশি দাম পাওয়ায় বিদেশিরা তা বিক্রি করে দিয়েছেন।

বিএসইসির সূত্র মতে, প্রবাসী ও বিদেশি বিনিয়োগকারী ২০২০ সালে শেয়ার বিক্রি করে বাজার থেকে ৬ হাজার কোটি টাকা তুলে নেন। ২০২১ সালে বাজার থেকে তুলে নেওয়া অর্থের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৫ হাজার কোটি টাকা।

বিএসইসির তথ্য মতে, ২০২১ সালে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) মোট ৩ লাখ ৫৪ হাজার ৫২ কোটি ৮৬ লাখ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিটের লেনদেন হয়েছে। এই সাড়ে ৩ লাখ কোটি টাকার লেনদেনের মধ্যে প্রবাসী ও বিদেশি বিনিয়োগকারীদের লেনদেন হয়েছে মাত্র ৭ হাজার ৭৬৪ কোটি ২১ লাখ ৭০ হাজার ৭৪৫ টাকা। এই সাড়ে ৭ হাজার কোটি টাকার লেনদেনের মধ্যে প্রবাসী ও বিদেশিরা ৫ হাজার ২০৬ কোটি ২০ লাখ ৫৮ হাজার ৯২১ টাকার শেয়ার বিক্রি করে ফেলেছেন। তার বিপরীতে মাত্র ২ হাজার ৫৫৮ কোটি ২ লাখ ১১ হাজার ৮২৩ টাকার শেয়ার কিনেছেন প্রবাসী বিদেশীরা।

২০২০ সালেও প্রবাসী ও বিদেশি বিনিয়োগকারীদের লেনদেন হয়েছিল ১০ হাজার ৩৮৭ কোটি ৬৫ লাখ ৫৫ হাজার ৭২৫ টাকার শেয়ার। ওই বছরেরও প্রবাসীরা ৬ হাজার ৪৯৬ কোটি ৮৮ লাখ ২১ হাজার ১৬১ টাকার শেয়ার বিক্রি করেন। তার বিপরীতে শেয়ার কেনেন ৩ হাজার ৮৯০ কোটি ৭৭ লাখ ৩৪ হাজার ৫৬৪ টাকার। অর্থাৎ গত দুই বছর ধরে শেয়ার বিক্রি করে পুঁজিবাজার থেকে টাকা তুলে নিচ্ছেন বিদেশিরা।

সেন্ট্রাল ডিপোজিটরি বাংলাদেশ লিমিটেডের (সিডিবিএল) তথ্য মতে, ২০২০ সালের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত প্রবাসী বিদেশিদের বিও হিসাব ছিল ১ লাখ ৫৫ হাজার ৮৫৯টি। ২০২১ সালের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত বিদেশি বিনিয়োগকারীদের বিও হিসাব দাঁড়িয়েছে ৮৬ হাজার ৩৬১টিতে। অর্থাৎ গত এক বছরে প্রবাসী ও বিদেশি বিনিয়োগকারীদের বিও হিসাব কমেছে ৬৯ হাজার ৪৯৮টি।

ট্রেডার বাংলাদেশ, ০৯ জানুয়ারি, ২০২২

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here