বিদেশিদের সর্বোচ্চ বিনিয়োগ ফার্মা খাতের তিন কোম্পানিতে

0
435

পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ওষুধ এবং রসায়ন খাতের তিন কোম্পানিতে বিদেশিদের সর্বোচ্চ বিনিয়োগ রয়েছে। এই খাতে তিন কোম্পানির মধ্যে সর্বোচ্চ সাড়ে ২৯ শতাংশ এবং সর্বনিন্ম ১৪ শতাংশ বিদেশি বিনিয়োগ রয়েছে। এই তিন কোম্পানির মধ্যে রয়েছে বেক্সিমকো ফার্মাসিটিক্যালস, রেনাটা বাংলাদেশ এবং স্কয়ার ফার্মাসিটিক্যালস লিমিটেড। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এই তথ্য জানা গেছে।

জানা গেছে, এই তিন কোম্পানির মধ্যে সর্বোচ্চ বিদেশি বিনিয়োগ রয়েছে বেক্সিমকো ফার্মাসিটিক্যালস লিমিটেডের। কোম্পানিটিতে বর্তমানে বিদেশি বিনিয়োগ রয়েছে ২৯.৫৮ শতাংশ।

কোম্পানিটি ৩০ জুন ২০২১ সমাপ্ত অর্থবছরে বিনিয়োগকারীদের জন্য ৩৫ শতাংশ ক্যাশ ডিভিডেন্ড দিয়েছে। আগের বছর কোম্পানিটি বিনিয়োগকারীদের জন্য ১৫ শতাংশ ক্যাশ এবং ১০ শতাংশ বোনাস ডিভিডেন্ড দিয়েছিলো। অর্থাৎ কোম্পানিটি এবার ৪০ শতাংশ বেশি ডিভিডেন্ড দিয়েছে।

৩০ জুন সমাপ্ত অর্থবছরে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ১১ টাকা ৪৯ পয়সা। আগের বছর কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় ছিলো ৭ টাকা ৮৮ পয়সা।

সর্বশেষ প্রথম প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর’২১) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ৩ টাকা ২৮ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় ছিলো ২ টাকা ৪১ পয়সা।

সর্বশেষ কোম্পানিটির শেয়ার লেনদেন হয়েছে ১৯৮ টাকা ৫০ পয়সায়। সর্বশেষ শেয়ার দর অনুযায়ী কোম্পানিটির পিই রেশিও অবস্থান করছে ১৫.১০।

রেনাটা বাংলাদেশ: ওষুধ ও রসায়ন খাতে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ বিদেশি বিনিয়োগ রয়েছে রেনাটা বাংলাদেশ লিমিটেডের। কোম্পানিটিতে বর্তমানে বিদেশি বিনিয়োগ রয়েছে ২২.৭৭ শতাংশ।

কোম্পানিটি ৩০ জুন ২০২১ সমাপ্ত অর্থবছরে বিনিয়োগকারীদের জন্য ১৪৫ শতাংশ ক্যাশ এবং ১০ শতাংশ বোনাস ডিভিডেন্ড দিয়েছে। আগের বছর কোম্পানিটি বিনিয়োগকারীদের জন্য ১৩০ শতাংশ ক্যাশ এবং ১০ শতাংশ বোনাস ডিভিডেন্ড দিয়েছিলো। অর্থাৎ কোম্পানিটি এবার ১১ শতাংশ বেশি ডিভিডেন্ড দিয়েছে।

৩০ জুন সমাপ্ত অর্থবছরে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ৫১ টাকা ৯৪ পয়সা। আগের বছর কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় ছিলো ৪১ টাকা ১৭ পয়সা।

সর্বশেষ প্রথম প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর’২১) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ১৪ টাকা ১৯ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় ছিলো ১২ টাকা ৭০ পয়সা।

সর্বশেষ কোম্পানিটির শেয়ার লেনদেন হয়েছে ১৩০৮ টাকায়। সর্বশেষ শেয়ার দর অনুযায়ী কোম্পানিটির পিই রেশিও অবস্থান করছে ২৩.০৮।

স্কয়ার ফার্মাসিটিক্যালস: ওষুধ এবং রসায়ন খাতে কোম্পানিটি তৃতীয় সর্বোচ্চ বিদেশি বিনিয়োগ রয়েছে। কোম্পানিটিতে বর্তমানে বিদেশি বিনিয়োগ রয়েছে ১৪.১৫ শতাংশ।

কোম্পানিটি ৩০ জুন ২০২১ সমাপ্ত অর্থবছরে বিনিয়োগকারীদের জন্য ৬০ শতাংশ ক্যাশ ডিভিডেন্ড দিয়েছে। আগের বছর কোম্পানিটি বিনিয়োগকারীদের জন্য ৪৭ শতাংশ ক্যাশ এবং ৫ শতাংশ বোনাস ডিভিডেন্ড দিয়েছিলো। অর্থাৎ কোম্পানিটি এবার ১৫ শতাংশ বেশি ডিভিডেন্ড দিয়েছে।

৩০ জুন সমাপ্ত অর্থবছরে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ১৭ টাকা ৯৯ পয়সা। আগের বছর কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় ছিলো ১৫ টাকা ০৭ পয়সা।

সর্বশেষ প্রথম প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর’২১) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ৫ টাকা ৬৪ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় ছিলো ৩ টাকা ৩০ পয়সা।

সর্বশেষ কোম্পানিটির শেয়ার লেনদেন হয়েছে ২২২ টাকা ৪০ পয়সায়। সর্বশেষ শেয়ার দর অনুযায়ী কোম্পানিটির পিই রেশিও অবস্থান করছে ৯.৮৬।

ট্রেডার বাংলাদেশ, ১৫ জানুয়ারি ২০২২

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here