স্টক ডিভিডেন্ড বাতিল ডমিনেজ স্টিলের

0
110

পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ডোমিনেজ স্টিল বিল্ডিং সিস্টেমের স্টক ডিভিডেন্ডের প্রস্তাব বাতিল করে দিয়েছে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)।

কোম্পানিটি ৩০ জুন, ২০২১ অর্থবছরের জন্য ১০ শতাংশ ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছিল। এরমধ্যে ছিল ৫ শতাংশ ক্যাশ ও ৫ শতাংশ স্টক ডিভিডেন্ড।

স্টক ডিভিডেন্ড অনুমোদনের জন্য প্রকৌশল খাতের স্টিল বিল্ডিং স্ট্রাকচার নির্মাতা প্রতিষ্ঠানটি বিএসইসিতে প্রেরণ করেছিল।

নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিএসইসি প্রতিষ্ঠানটির আর্থিক অবস্থা পর্যালোচনা করে স্টক ডিভিডেন্ডের প্রস্তাব নাকচ করে দিয়েছে।

ফেব্রিকেটেড স্টিল স্ট্রাকচার ব্যবসায় নিযুক্ত কোম্পানিটি ২০২০ সালের আগস্টে প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) মাধ্যমে শেয়ারবাজার থেকে ৩০ কোটি টাকা সংগ্রহ করেছিল।

কোভিড-১৯ মহামারীর কারণে শেয়ারহোল্ডার এবং নিয়ন্ত্রক সংস্থার কাছ থেকে অনুমোদন নেওয়ার পরও কোম্পানিটি আইপিও তহবিল ব্যবহার করতে পারেনি।

বিএসইসির সূত্র জানায়, কমিশন মনে করে কোম্পানির আইপিও ফান্ড এখনো অব্যবহ্নত রয়েছে। এছাড়া ফার্মটি মহামারীর মধ্যে প্রত্যাশিত ব্যবসা করতে পারেনি।

এই পরিস্থিতিতে, স্টক ডিভিডেন্ড ব্যবসার জন্য কার্যকর উপায় হবে না। এটি কোম্পানির পরিশোধিত মূলধন বৃদ্ধি করবে যা ভবিষ্যতের ডিভিডেন্ডকে প্রভাবিত করবে।

কোম্পানিটি তার ব্যবসার আয়ের একটি অংশ একটি ড্রেজার কেনার জন্য স্টক ডিভিডেন্ড দেওয়ার প্রস্তাব করেছিল। এখন ড্রেজার ভাড়া করে কোম্পানিটি চলছে বলে জানা যায়।

কোম্পানি সূত্র জানায়, কোম্পানিটি চলতি বছরের জানুয়ারিতে আইপিও তহবিল ব্যবহার শুরু করেছে। কোম্পানিটি ভবন নির্মাণের পাশাপাশি বৈদ্যুতিক সরঞ্জাম এবং নতুন যন্ত্রপাতি কেনার কাজে আইপিও তহবিল ব্যবহার করবে।

৩০ জুন, ২০২১ অর্থবছরে ডমিনেজ স্টিলের শেয়ার প্রতি সমন্বিত আয় (ইপিএস) হয়েছে ১ টাকা ১৭ পয়সা। যা আগের বছর ছিল ১ টাকা ২৭ পয়সা।

এদিকে, চলতি অর্থবছরের প্রথম দুই প্রান্তিকে তথা ৬ মাসে (জুলাই-ডিসেম্বর’২১) কোম্পানিটি শেয়ার প্রতি আয় করেছে ২৬ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে আয় ছিল ৭৪ পয়সা।

বর্তমানে কোম্পানিটির পরিশোধিত মূলধন রয়েছে ১০২ কোটি ৬০ লাখ টাকা এবং মোট শেয়ার রয়েছে ১০ কোটি ২৬ লাখ। বিপরীতে কোম্পাটির রিজার্ভ রয়েছে ৪২ কোটি ৯৮ লাখ টাকা।

মোট শেয়ারের মধ্যে উদ্যোক্তা পরিচালকদের কাছে রয়েছে ৩০.২০ শতাংশ, প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের কাছে ১৯.৪৩ শতাংশ, বিদেশি বিনিয়োগকারীদের কাছে ০.০১ শতাংশ এবং সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে ৫০.৩৬ শতাংশ শেয়ার।

সর্বশেষ কোম্পানিটির শেয়ার লেনদেন হয়েছে ২৩ টাকা ৬০ পয়সায়। সেই হিসাবে এর পিই রেশিও দাঁড়িয়েছে ৪২.১৪ পয়েন্টে।

ট্রেডার বাংলাদেশ, ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০২২

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here