ব্লক মার্কেটও যেতে পারছেন না ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীরা

0
26
HTML tutorial

দিন যত যাচ্ছে ততই মার্কেট স্থবির হয়ে পড়ছে। কোন গতি না পাওয়ায় ১০% শতাংশ কম দরে ব্লক মার্কেটে হাতে থাকা শেয়ার বিক্রি করছেন বিনিয়োগকারীরা। কিন্তু নিয়মানুযায়ী ব্লক মার্কেটে সর্বনিম্ন ৫ লাখ টাকা মূল্যের শেয়ার কেনাবেচা করতে হবে। সেজন্য ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারী যারা ৫ লাখ টাকার নিচে পোর্টফোলিও রয়েছে তারা ব্লক মার্কেটে শেয়ার কেনাবেচা করতে পারছেন না। যার ফলে ফ্লোরে আটকে থাকায় অনেক বিনিয়োগকারী জরুরি প্রয়োজনে শেয়ার বিক্রি করে টাকা তুলতে পারছেন না।

প্রাপ্ত তথ্যে জানা যায়, আজ ১৮ ডিসেম্বর ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) ৫০ কোম্পানির শেয়ার ব্লকে লেনদেন হয়েছে। সর্বমোট ৫১ লাখ ৬ হাজার ১৫৬টি শেয়ার ১৪২ বার হাতবদলে লেনদেন হয়েছে যার মূল্য দাঁড়িয়েছে ৬৬ কোটি ২০ লাখ ৫২ হাজার টাকা। অর্থাৎ আজ মোট লেনদেনের (প্রায় ৩৪১ কোটি টাকা) ২০ শতাংশের মতো ব্লক মার্কেটে লেনদেন হয়েছে। ব্লক মার্কেটে লেনদেন হওয়া ৫০ কোম্পানির মধ্যে সবচেয়ে বেশি লেনদেন হয়েছে রেনাটা লিমিটেড ও ইন্ট্রাকো রি-ফুয়েলিং স্টেশন লিমিটেডের। রেনাটা লিমিটেডের ২৩ কোটি ৩৯ লাখ এবং ইন্ট্রাকো’র ১০ কোটি ৫১ লাখ টাকার শেয়ার ব্লক মার্কেটে ট্রেড হয়েছে।

লেনদেন বাড়াতে ফ্লোর প্রাইসের তুলনায় সর্বোচ্চ ১০ শতাংশ কমে ব্লকে কেনাবেচার সুযোগ করেছে বিএসইসি। তার পরও সার্বিক লেনদেন বাড়ছে না। লেনদেন ঘুরেফিরে ৩০০ থেকে ৪০০ কোটি টাকার ঘরে আটকে আছে। অবশ্য ব্লক মার্কেটের লেনদেন বাদ দিলে তা আরও কম হতো।

তবে যারা ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারী অর্থাৎ ৫ লাখ টাকার নিচে বিনিয়োগ রয়েছে তারা চাইলেও ব্লক মার্কেটে শেয়ার লেনদেন করতে পারছেন না। যার ফলে স্বল্প পুঁজির বিনিয়োগকারীরা হাতে শেয়ার নিয়ে ফ্লোরে আটকে রয়েছে। এতে বর্তমান বাজারে শুধুমাত্র অল্প কিছু বড় বিনিয়োগকারী ও প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীরাই লেনদেন করতে পারছেন। এ অবস্থায় বাজারের সার্বিক পরিস্থিতি গতিশীল না হওয়ার কোন বিকল্প পথ দেখছেন না বাজার সংশ্লিষ্টরা।

ট্রেডার বাংলাদেশ, ১৯ ডিসেম্বর, ২০২২

HTML tutorial

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here